STORE

Get 10% off 🥳 | code HAPPY10

🚚 Free delivery above ₹499

VIEW PRODUCTS

ADDED TO CART SUCCESSFULLY GO TO CART
  • Home arrow
  • Diet & Nutrition arrow
  • গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কোন খাবার সবচেয়ে ভাল? | What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in Bengali arrow

In this Article

    গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কোন খাবার সবচেয়ে ভাল? | What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in Bengali

    Diet & Nutrition

    গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কোন খাবার সবচেয়ে ভাল? | What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in Bengali

    24 November 2023 আপডেট করা হয়েছে

    সুস্থ গর্ভধারণ এবং শিশুর সামগ্রিক বিকাশকে সাহায্য করার জন্য গর্ভাবস্থায় সঠিক পুষ্টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্যকর খাওয়ার মূল মন্ত্র হল প্রচুর পরিমাণে ফল, শাকসবজি, শস্য, চর্বিহীন প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর ফ্যাট খাওয়া। তবে বিষয়টা যখন গর্ভাবস্থায় কোন খাবারগুলি সবচেয়ে ভাল তা বোঝার, তখন এমন খাবার বেছে নিন যা মাত্র কয়েক কামড়েই দেয় ভরপুর পুষ্টি এবং শরীরে অত্যধিক ক্যাল্রীরেবাড়ায় না। অতিরিক্ত শর্করা, স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং সোডিয়াম যুক্ত খাবার এবং পানীয় কম খান। এছাড়াও, এটা নিশ্চিত করুন যে প্রতিবার খাওয়ার সময় আপনার অর্ধেক প্লেট যেন ফল ও সবজি দিয়ে ভরা থাকে। যেহেতু সর্বোত্তম পুষ্টি নারীদের গর্ভাবস্থার বর্ধিত শারীরিক চাহিদা মেটাতে এবং ভ্রূণের বিকাশে সাহায্য করতে পারে, তাই গর্ভাবস্থায় স্বাস্থ্যকর ডায়েট মেনে চলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

    গর্ভাবস্থার জন্য সেরা খাবারগুলি (Best Foods For Pregnancy in Bengali)

    গর্ভাবস্থায় বিভিন্ন খাবার খাওয়া যেতে পারে। তবে, নিম্নলিখিত কয়েকটি খাবার গর্ভাবস্থার সুপার ফুড হিসেবে ধরা হয়:

    1. ডিম (Eggs)

    ডিম প্রোটিনের একটি বড় উৎস এবং আপনার গর্ভাবস্থার ডায়েটের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। প্রোটিন তৈরি হয় অ্যামিনো অ্যাসিড দিয়ে, যা আপনার এবং আপনার শিশুর শরীরের কোষগুলির বিল্ডিং ব্লক। ডিমে ভিটামিন এবং মিনারেলও থাকে, যার মধ্যে রয়েছে কোলিন যা প্রধানত কুসুমে থাকে। কোলিন শিশুর মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডের বিকাশে সাহায্য করে এবং নির্দিষ্ট জন্মগত অক্ষমতা প্রতিরোধে সহায়তা করে।

    2. দুগ্ধজাত খাবার (Dairy Products)

    গর্ভাবস্থায় আপনার শরীরের ভিতরে বাড়ন্ত শিশুর প্রয়োজনীয়তা মেটাতে আপনার অতিরিক্ত প্রোটিন এবং ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন। অতএব, আপনার খাদ্যতালিকায় দুধ, পনির এবং দই রাখা অপরিহার্য। দুগ্ধজাত খাবারে দুই ধরনের উচ্চ-মানের প্রোটিন, কেসিন এবং হোয়ে অন্তর্ভুক্ত। দুগ্ধজাত দ্রব্য হল ক্যালসিয়ামের সর্বোত্তম উৎস এবং এতে থাকে উচ্চ পরিমাণে ফসফরাস, ভিটামিন বি, ম্যাগনেসিয়াম এবং জিঙ্ক।

    3. স্যামন (Salmon)

    স্যামন ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিডের একটি চমৎকার উৎস, যা আপনার শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং এমনকি এটি আপনার মস্তিষ্ককেও উজ্জীবিত করে। স্যামনে প্রোটিন এবং ভিটামিন ডি-ও আছে, যা আপনার শিশুর হাড় ও দাঁতের জন্য অপরিহার্য। আট থেকে বারো আউন্সের কম-পারদযুক্ত সামুদ্রিক খাবারের জন্য স্যামন উপযুক্ত পছন্দ এবং গর্ভবতী মহিলা্রা তা নিরাপদে প্রতি সপ্তাহে খেতে পারেন।

    4. ডাল (Beans)

    মুসুর, মটর এবং চিনাবাদামের মতো বিনস জাতীয় ডাল প্রোটিন, আয়রন, ফোলেট, পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়ামের দুর্দান্ত উৎস। ডাল ফাইবারের একটি দারুণ উৎস এবং গর্ভাবস্থার সাধারণ অস্বস্তি যেমন কোষ্ঠকাঠিন্য এবং হেমোরয়েডস প্রতিরোধ ও উপশম করতে সহায়তা করে। আপনি প্রেগন্যান্ট থাকাকালীন এগুলি খাওয়া অপরিহার্য।

    5. মিষ্টি আলু (Sweet potatoes)

    মিষ্টি আলুর কমলা রঙ আসে উদ্ভিদের পিগমেন্ট ক্যারোটিনয়েড থেকে, যা আমাদের দেহে ভিটামিন এ-তে রূপান্তরিত হয়। শিশুর সুস্থ হাড়, ফুসফুস, চোখ এবং ত্বকের বিকাশের জন্য ভিটামিন এ প্রয়োজন। এই মিষ্টি সবজিটি ভিটামিন সি, ম্যাঙ্গানিজ এবং ভিটামিন বি6-এর একটি দুর্দান্ত উৎস, যা মর্নিং সিকনেস দূর করতে সহায়তা করতে পারে। এছাড়াও এতে পটাসিয়াম এবং ফাইবার উপাদান রয়েছে।

    6. গোটা শস্য (Whole grains)

    গোটা শস্যে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার এবং পুষ্টি থাকে, যেমন ভিটামিন, আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ভিটামিন ই এবং মিনারেল সেলেনিয়াম। এগুলিতে উদ্ভিদ-ভিত্তিক কমপাউন্ড ফাইটোনিউট্রিয়েন্টও রয়েছে, যা কোষকে রক্ষা করে। আপনার গর্ভাবস্থার ডায়েটে বিভিন্ন ধরনের গোটা শস্য রাখার চেষ্টা করুন, যেমন বার্লি, বাকহুইট, ওটস এবং ভুট্টা।

    7. আখরোট (Walnuts)

    আখরোট উদ্ভিদ-ভিত্তিক ওমেগা-3 সমৃদ্ধ উৎসগুলির মধ্যে একটি। এগুলি ম্যাগনেসিয়াম, ফাইবার এবং প্রোটিনেরও দুর্দান্ত উৎস, তাই যখন-তখন হালকা স্ন্যাকের জন্য এক মুঠো আখরোট খান বা আপনার স্যালাডে যোগ করুন। আপনি একই সুফলের জন্য অন্যান্য বাদামও খেতে পারেন, যেমন আমন্ড, পেস্তা, বাদাম এবং তাহিনির মতো বীজ থেকে তৈরি মাখন।

    8. গ্রিক ইয়োগার্ট (Greek yoghurt)

    গ্রিক ইয়োগার্টে সাধারণ দইয়ের চেয়ে দ্বিগুণ প্রোটিন রয়েছে। এছাড়াও, এটি প্রোবায়োটিক, ভিটামিন বি, ফসফরাস এবং ক্যালসিয়ামের একটি দুর্দান্ত উৎস। ক্যালসিয়াম আপনার হাড়কে মজবুত রাখতে সাহায্য করে এবং আপনার শিশুর সুস্থ হাড়ের কাঠামো গড়ে তুলতে সাহায্য করে। দই প্রাতঃরাশের একটি বহুমুখী উপাদান যা নোনতা খাবারেও যোগ করা যেতে পারে। প্রতিদিন ক্যালসিয়াম গ্রহণের আরেকটি উপযুক্ত উপায় হল দুধ খাওয়া।

    9. ব্রকলি এবং গাঢ় রঙের শাক-সবজি (Broccoli and dark leafy vegetables)

    ব্রকলি এবং গাঢ় রঙের শাক-সবজি যেমন পালং শাক, কেল এবং সুইস চার্ড হল এমন প্রিন্যাটাল সুপারফুড যা ভিটামিন এ, সি, এবং কে-র পাশাপাশি ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ফোলেট সহ বিভিন্ন পুষ্টিগুণে ভরপুর। এগুলি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইবার সমৃদ্ধ, যা কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সাহায্য করে। আপনার ডায়েটে গাঢ় সবুজ শাক-সবজি অন্তর্ভুক্ত করা খুবই সহজ, স্রেফ কুচিয়ে স্মুদি, স্যুপ এবং অমলেটে যোগ করুন অথবা হালকা ভেজে নিন।

    10. চর্বিহীন মাংস এবং মুরগি (Lean meats and poultry)

    মাংস উচ্চমানের প্রোটিনের একটি চমৎকার উৎস এবং ভিটামিন বি, আয়রন এবং জিঙ্কে সমৃদ্ধ। হিমোগ্লোবিন তৈরির জন্য আয়রন অপরিহার্য, এবং গর্ভাবস্থায়, বিশেষ করে তৃতীয় ট্রাইমেস্টারে আপনার এটির বেশি প্রয়োজন। গর্ভাবস্থার প্রথম দিকে এবং মাঝামাঝি সময়ে আয়রনের মাত্রা কম হলে আয়রনের ঘাটতিজনিত অ্যানিমিয়া হতে পারে, যা শিশুর জন্মের সময় কম ওজন এবং অন্যান্য ঝুঁকি বাড়ায়। শুধু খাবার দিয়ে আপনার আয়রনের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করা কঠিন, এবং বিশেষ করে যদি আপনি নিরামিষাশী বা ভেগান হন। তাই ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার যেমন কমলালেবু এবং ক্যাপসিকাম, আয়রন সমৃদ্ধ খাবারের সাথে মিশিয়ে খেলে তা আয়রন শোষণ বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। আপনার খাবারে প্রায় 95 থেকে 98 শতাংশ ফ্যাট-বিহীন মাংস অন্তর্ভুক্ত করুন। তৈরি করা মাংস এবং হট ডগ এড়িয়ে যান, যতক্ষণ না সেগুলি গরম না করা হয়, কারণ লিস্টিরিয়া, টক্সোপ্লাজমা বা সালমোনেলার ​​মতো ব্যাকটেরিয়া এবং পরজীবী থেকে সংক্রমণের সামান্য ঝুঁকি থেকে যায়, যা গর্ভাবস্থায় আপনার এবং আপনার শিশুর জন্য বিপজ্জনক হতে পারে।

    11. রংবেরঙের ফল এবং সবজি (Colourful fruits and veggies)

    প্রচুর পরিমাণে সবুজ, লাল, কমলা, হলুদ এবং বেগুনি ফল এবং শাকসবজি খাওয়া আপনাকে এবং আপনার শিশুকে বিভিন্ন রকম পুষ্টি পেতে সাহায্য করে। প্রতিটি রঙের গ্রুপে বিভিন্ন ভিটামিন এবং মিনারেল রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, ক্যাপসিকামে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে, যা আয়রন শোষণ করতে সাহায্য করে। অন্যদিকে, বেরিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে এবং গর্ভাবস্থায় খাওয়ার জন্য ফল হিসাবে সেরা। শাকসবজি খেলে শিশুর জন্মের সময় কম ওজনের ঝুঁকি কমে। রঙিন ফল এবং সবজি একসাথে খাওয়ার একটি কার্যকর উপায় হল স্যালাড খাওয়া।

    12. অ্যাভোকাডো (Avocados)

    অ্যাভোকাডো মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিডে সমৃদ্ধ, যা আপনার শিশুর ত্বক এবং মস্তিষ্কের বিকাশে সাহায্য করে। এগুলি ভিটামিন কে, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফোলেট সমৃদ্ধ, যা নির্দিষ্ট জন্মগত অক্ষমতা প্রতিরোধে সহায়তা করে। অ্যাভোকাডোতে থাকা পটাসিয়াম পায়ের ক্র্যাম্প উপশম করতে সাহায্য করে। এছাড়াও, এর ফাইবার উপাদান কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করার একটি প্রতিষেধক। অ্যাভোকাডোতে থাকা ভিটামিন B6 বমিভাব কমাতে সাহায্য করতে পারে এবং এটি আপনার শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশের জন্যও উপযুক্ত।

    13. ড্রাই ফ্রুট (Dried fruit)

    ড্রাই ফ্রুট সহজেই সঙ্গে নিয়ে ঘোরা যায় এবং পুষ্টিতে ভরপুর, তাই এগুলি মাঝে মাঝেই তাজা ফলের বিকল্প হিসেবে খাওয়া যেতে পারে, এবং আপনার প্রেগন্যান্সি ডায়েটে এগুলি অপরিহার্য। চিনিবিহীন ড্রাই ফ্রুট খাওয়ার চেষ্টা করুন। আপনি কত ধরনের ড্রাই ফ্রুট বেছে নেন তার উপর নির্ভর করে, আপনি বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন এবং আয়রনের মতো মিনারেল, তার পাশাপাশি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইবার দিয়ে আপনার খাদ্যকে আরও সুষম করে তুলতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, কোষ্ঠকাঠিন্য, যা অনেক গর্ভবতী মহিলাকে জর্জরিত করে, তার একটি পরীক্ষিত এবং সঠিক প্রতিকার হল আলুবোখরা।

    14. জল (Water)

    হাইড্রেটেড থাকার জন্য আমাদের সকলের জলের প্রয়োজন, বিশেষ করে গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে। গর্ভাবস্থায় রক্তের পরিমাণ প্রায় 45 শতাংশ বৃদ্ধি পায়। তাই প্রতিদিন অন্তত আট থেকে দশ গ্লাস জল খাওয়া অপরিহার্য কারণ এটি আপনার শিশুর জন্য পুষ্টি সরবরাহে গুরুত্বপূর্ণ এবং নতুন কোষ তৈরি করতে সাহায্য করে। এছাড়াও, গর্ভাবস্থায় পর্যাপ্ত জল পান করা কোষ্ঠকাঠিন্য এড়ানোর অন্যতম সেরা উপায়, কারণ ডিহাইড্রেশন অকাল প্রসবের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে।

    গর্ভাবস্থায় যে-খাবারগুলি এড়ানো উচিত (Foods To Avoid During Pregnancy in Bengali)

    গর্ভাবস্থায় যেমন কিছু খাবার খাওয়া সবচেয়ে ভাল, তেমনই মনে রাখবেন কিছু খাবার আপনার এড়ানো উচিত। কিছু খাবারে ব্যাকটেরিয়া বা রাসায়নিক থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে যা আপনাকে অসুস্থ করে তুলতে পারে। গর্ভাবস্থায় যে-খাবারগুলি এড়িয়ে চলতে হবে তা নীচে দেওয়া হল।

    • পারদ থাকে এমন সামুদ্রিক খাবার এড়িয়ে চলুন, যেমন হাঙর, সোর্ডফিশ এবং মারলিন অথবা এগুলি খাওয়ার পরিমাণ একেবারে ন্যূনতম রাখুন।
    • রান্না না করা বা আংশিকভাবে রান্না করা মাংস খাওয়া এড়িয়ে চলুন এবং ভালভাবে রান্না করা মাংস খান।
    • ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাল দূষণের ঝুঁকির কারণে রান্না না করা শেলফিশ এড়িয়ে চলুন, যা খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণ হতে পারে।
    • কাঁচা ডিম এবং এমন কোনও খাবার যাতে কাঁচা ডিম আছে তা এড়িয়ে চলুন।
    • নরম, পাকা চিজ যেমন ব্রি এবং ক্যামেম্বার্ট এড়িয়ে চলুন, কারণ এগুলি থেকে লিস্টেরিয়া দূষণ হওয়ার ঝুঁকি থাকে। লিস্টেরিয়া হল এমন একটি ব্যাকটেরিয়া যা গর্ভবতী মহিলাদের এবং তাদের শিশুদের মধ্যে মারাত্মক সংক্রমণ ঘটাতে পারে।

    সাপ্লিমেন্ট (Supplements in Bengali)

    গর্ভবতী মহিলাদের প্রায় সমস্ত ধরনের জল- এবং চর্বি-দ্রবণীয় পুষ্টির প্রয়োজন। অতএব, ডাক্তাররা সুস্থতা এবং স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারের জন্য গর্ভাবস্থার আগে, গর্ভাবস্থা চলাকালীন এবং তার পরে প্রিন্যাটাল সাপ্লিমেন্টের সুপারিশ করেন। একটি ভাল প্রিন্যাটাল সাপ্লিমেন্টে সমস্ত প্রয়োজনীয় পুষ্টি থাকে, যার মধ্যে রয়েছে:

    1. ফোলেট (Folate)

    বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, গর্ভবতী মহিলাদের গর্ভাবস্থার 12তম সপ্তাহ পর্যন্ত প্রতিদিন 400 mcg ফলিক অ্যাসিড খাওয়া উচিত।

    2. আয়রন (Iron)

    একজন গর্ভবতী মহিলার প্রতিদিন 27 মিলিগ্রাম আয়রন খাওয়া উচিত। বেশিরভাগ মহিলা তা স্বাস্থ্যকর খাদ্যের মাধ্যমে পেতে পারেন।

    3. ভিটামিন ডি (Vitamin D)

    কিছু গবেষণায় অনুমান করা হয়েছে যে বিশ্বব্যাপী 18-24% গর্ভবতী মহিলা ভিটামিন ডি-এর অভাবে ভোগেন। একজন গর্ভবতী মহিলার দৈনিক 15 mcg ভিটামিন ডি প্রয়োজন।

    4. জিঙ্ক (Zinc)

    গর্ভাবস্থায় জিঙ্ক সাপ্লিমেন্ট খাওয়া অকাল প্রসবের ঝুঁকি কিছুটা কমাতে পারে। একজন গর্ভবতী মহিলার 11-12 mcg জিঙ্ক প্রয়োজন।

    5. কোলিন (Choline)

    গর্ভবতী মহিলাদের এবং তাদের শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য কোলিন অপরিহার্য। গবেষণায় দেখা গেছে যে বেশিরভাগ গর্ভবতী মহিলারা প্রতিদিন প্রস্তাবিত 450 মিলিগ্রাম কোলিন পান না কারণ অনেক প্রিন্যাটাল ভিটামিনে এটা থাকে না। তাই ডিম এবং শিটাকে মাশরুম খাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যাতে উচ্চ পরিমাণে কোলিন থাকে।

    6. ভিটামিন এ (Vitamin A)

    ভিটামিন এ বা রেটিনল গর্ভাবস্থায় স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গর্ভবতী মহিলাদের 750-770 mcg ভিটামিন এ বা রেটিনল অ্যাক্টিভিটি ইকুইভ্যালেন্ট (RAE) খাওয়া উচিত। ভিটামিন এ বিভিন্ন ভাবে পাওয়া যায়। RAE এই বৈচিত্র্যময় ধরনগুলিতে ভিটামিনের আপেক্ষিক পরিমাণ পরিমাপ করে। একটি RAE হল 1 mcg রেটিনল বা খাবার থেকে 12 mcg বিটা ক্যারোটিন, সাপ্লিমেন্ট থেকে দুই mcg বিটা ক্যারোটিন বা 3.33 IU ভিটামিন এ।

    7. ওমেগা-3s (Omega-3s)

    ওমেগা-3 গর্ভাবস্থায় গর্ভাবস্থায় প্রসবকালীন বিকাশ এবং একজন মহিলার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য অপরিহার্য। গর্ভাবস্থায় ওমেগা-3 পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড গ্রহণের পরিমাণ বৃদ্ধি অকাল প্রসবের ঝুঁকি কমাতে পারে।

    স্বাস্থ্যকর প্রেগন্যান্সি ডায়েটের জন্য টিপস (Tips For A Healthy Pregnancy Diet in Bengali)

    1. গর্ভবতী মহিলাদের প্রচুর প্রোটিন, স্বাস্থ্যকর ফ্যাট এবং আরও নির্দিষ্ট ভিটামিন ও মিনারেল যেমন ফলিক অ্যাসিড, আয়রন এবং ক্যালসিয়াম প্রয়োজন।

    2. গর্ভাবস্থায় পর্যাপ্ত পরিমাণে খাওয়া মানে প্রচুর পরিমাণে খাওয়া নয়। আপনার যদি শুরু থেকেই স্বাস্থ্যকর ওজন থাকে তবে প্রথম ট্রাইমেস্টারে আপনার অতিরিক্ত ক্যালোরির প্রয়োজন নেই। আপনার দ্বিতীয় ট্রাইমেস্টারে দিনে প্রায় 350 অতিরিক্ত ক্যালোরি এবং তৃতীয় ট্রাইমেস্টারে প্রায় 450 অতিরিক্ত ক্যালোরির প্রয়োজন হবে।

    3. গর্ভাবস্থায় কিছু খাবার বিপজ্জনক হতে পারে, তাই সেগুলি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। এছাড়াও, আপনার ক্যাফিন গ্রহণ সীমিত রাখুন এবং গর্ভাবস্থায় অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন।

    4. স্বাস্থ্যকর প্রেগন্যান্সি স্ন্যাকস আপনার পুষ্টির চাহিদা মেটাতে সাহায্য করবে এবং প্রসেসড খাবার, প্যাকেটজাত খাবার এবং চিনিযুক্ত মিষ্টি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

    5. যদি বমি-বমি ভাব, খাওয়ায় অনীহা, অম্বল, বা বদহজম পর্যাপ্ত পরিমাণে পেট ভরে খাবার খাওয়াকে অস্বস্তিকর করে তোলে, তাহলে সারা দিন অল্প পরিমাণে, ঘন ঘন খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। আপনার গর্ভাবস্থা এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে এবং আপনার শিশুর বৃদ্ধির সাথে সাথে এটি আপনার পাকস্থলী এবং পাচক অঙ্গগুলিকে ভিড় করতে পারে, যার ফলে বড় খাবার খাওয়ার জন্য আপনার শরীরে জায়গা কম হয়।

    6. এছাড়াও, আপনি একটি গর্ভাবস্থার খাবারের প্ল্যান তৈরি করতে পারেন যা আপনার প্রেগন্যান্সি ডায়েট থেকে প্রয়োজনীয় সবকিছু পেতে সাহায্য করবে।

    গর্ভবতী মহিলাদের কি সম্পূর্ণরূপে অ্যালকোহল পান বন্ধ করা উচিত? (Should Pregnant Women Completely Stop Drinking Alcohol in Bengali)

    গর্ভাবস্থায় অ্যালকোহলের কোনও নিরাপদ পরিমাণ নেই, তাই এটি সম্পূর্ণরূপে এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। রক্তে অ্যালকোহল আম্বিলিক্যাল কর্ডের মাধ্যমে ভ্রূণের কাছে পৌঁছে যায়, এবং অ্যালকোহল অত্যধিক খেলে তা ভ্রূণের বিকাশকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এছাড়াও, ঝুঁকি রয়েছে যে শিশুটির ফিটাল অ্যালকোহল স্পেকট্রাম ডিসঅর্ডার হতে পারে, যার ফলে দৃষ্টি বা শ্রবণ সমস্যা, মনোযোগের সমস্যা এবং জন্মের সময় কম ওজনের মতো নানা জটিলতা হতে পারে।

    গর্ভবতী মহিলাদের কি ক্যাফিন খাওয়া এড়ানো উচিত? (Should Pregnant Women Avoid Caffeine in Bengali)

    গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত ক্যাফিন পান করা গর্ভপাত, ভ্রূণের বিকাশের সমস্যা এবং জন্মের সময় কম ওজনের মতো ঝুঁকির সাথে যুক্ত। প্রতিদিন 100-200 মিলিগ্রামের মতো ক্যাফিন খাওয়া ভ্রূণের বিকাশকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করতে পারে। তবে, এই সমস্যার অন্তর্নিহিত কারণগুলি এখনও অস্পষ্ট। কফি ছাড়াও বিভিন্ন খাবার এবং পানীয়তে ক্যাফিন থাকে, যেমন সোডা, এনার্জি ড্রিঙ্কস, চকোলেট এবং চা। কিছু কোল্ড ও ফ্লু ওষুধেও ক্যাফিন থাকে। গর্ভাবস্থায় কোন ওষুধগুলি নিরাপদ সে-সম্পর্কে একজন ডাক্তার আরও তথ্য দিতে পারেন।

    পরিশেষে (Conclusion)

    গর্ভাবস্থায় সুস্থ থাকার জন্য শরীরের শারীরিক চাহিদাগুলি বেড়ে যায়। আপনার ক্রমবর্ধমান শিশুর পুষ্টিতে ভরপুর খাবারের প্রয়োজন যা পাওয়া যায় সুষম ডায়েট থেকে, যার মধ্যে থাকা উচিত গোটা শস্য, ফল ও শাকসবজি, চর্বিহীন প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর ফ্যাট। গর্ভাবস্থার ডায়েটে উদ্ভিদ এবং প্রাণীজ উৎস থেকে সর্বোত্তম প্রোটিন গ্রহণ করা উচিত যেমন মাছ, মুরগি, ডিম এবং ডাল। খাবারে ওটস, মিষ্টি আলু এবং ফল থেকে প্রাপ্ত ফাইবার সমৃদ্ধ কার্বোহাইড্রেট এবং অ্যাভোকাডো, বাদাম, বীজ ও দইয়ের মতো উৎস থেকে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। আপনি একাধিক সুস্বাদু খাবারের বিকল্পগুলির মধ্যে থেকে বেছে নিতে পারেন, যা আপনার শিশুকে তার প্রয়োজনীয় সমস্ত পুষ্টি সরবরাহ করতে পারে। এছাড়াও, আপনার ডাক্তারকে আপনার খাওয়ার পছন্দ সম্পর্কে অবগত রাখুন এবং তাঁকে প্রয়োজনীয় সাপ্লিমেন্টগুলির সাথে ডায়েট বানাতে দিন।

    References

    1. Danielewicz H, Myszczyszyn G, Dębińska A, Myszkal A, Boznański A, Hirnle L. (2017). Diet in pregnancy-more than food. Eur J Pediatr.

    2. Wang X. (2021). Healthy diet during pregnancy-navigating the double-edged sword. Am J Clin Nutr.

    Tags

    Best Food in Pregnancy in Bengali, What are the Best Food in Pregnancy in Bengali, Best Food for Pregnancy in Bengali, Food to avoid in Pregnancy in Bengali, Caffiene in Pregnancy in Bengali, Alcohol in Pregnancy in Bengali, What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in English, What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in Hindi, What is the Best Thing for Pregnant Women To Eat in Tamil

    Is this helpful?

    thumbs_upYes

    thumb_downNo

    Written by

    Parna Chakraborty

    Get baby's diet chart, and growth tips

    Download Mylo today!
    Download Mylo App

    RECENTLY PUBLISHED ARTICLES

    our most recent articles

    Start Exploring

    About Us
    Mylo_logo

    At Mylo, we help young parents raise happy and healthy families with our innovative new-age solutions:

    • Mylo Care: Effective and science-backed personal care and wellness solutions for a joyful you.
    • Mylo Baby: Science-backed, gentle and effective personal care & hygiene range for your little one.
    • Mylo Community: Trusted and empathetic community of 10mn+ parents and experts.

    Open in app